পারিবারিক সুখে, আত্মিক শান্তিতে বা পেশাগত সাফল্যে অনেকেই তৃপ্ত। কিন্তু দুঃখের বিষয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের উত্থানের সঙ্গে সঙ্গে প্রত্যেকেই তাদের জীবন অন্যের জীবনের সঙ্গে তুলনা করতে ব্যস্ত।  আর এর ফলে সৃষ্টি হচ্ছে নেতিবাচক পরিবেশ। যার কারণে ভয়ঙ্করভাবে ঈর্ষা বেড়ে যাচ্ছে।

আর ঈর্ষা গোপনে। এই গোপন ঈর্ষাকারীকে সহজে চিহ্নিত করা যেতে পারে এমন কয়েকটি লক্ষণের কথা জানিয়েছে মনস্তত্ত্ব বিষয়ক আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট ‘দ্য মাইন্ডস জার্নাল’।

এক নজরে দেখে নিন এই লক্ষণগুলো—

১. লক্ষ্য রাখুন, কেউ আপনাকে অনুকরণ করছেন কি না। গোপনে ঈর্ষান্বিত ব্যক্তিদের এটা প্রাথমিক লক্ষণ।

২. খেয়াল রাখবেন, কেউ অযথা আপনার স্তুতি করছেন কিনা। বেশি তোষামুদে মানুষের মনে কিন্তু গোপন ঈর্ষার বাসা।

৩. কেউ যদি আপনার কোনো সাফল্যকে ছোট করে দেখেন। তবে তিনি আপনার প্রতি ঈর্ষাকাতর।

৪. সর্বদা আপনার খুঁত ধরেন, এমন লোক থেকে সাবধান! এরা কিন্তু আপনার প্রতি গোপনে হিংসের জাল বুনে চলেছেন।

৫. খেয়াল রাখবেন, আপনার পিছনে কেউ কোনো গুজব রটাচ্ছেন কি না। যদি রটে, তা হলে সেই গুজবের উদ্ভাবনকারী খুঁজে বের করুন। তবেই বুঝবেন তিনি কোনো গোপন ঈর্ষা থেকেই এই কাণ্ড ঘটাচ্ছেন।

৬. কেউ কি আপনাকে অযাচিত উপদেশ দিচ্ছেন? এমন ক্ষেত্রে কিন্তু সেই ব্যক্তির গোপন ঈর্ষাকারী হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here