দিনাজপুরে পুলিশের মানবিকতায় বেঁচে গেল সড়ক দুর্ঘটনায় রাস্তায় পড়ে থাকা মা-ছেলেসহ ৩ জন। আহত ৩ অটোযাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করালেন বীরগঞ্জ থানার ওসি সাকিলা পারভিন। পাশাপাশি তাৎক্ষণিক ভাবে চিকিৎসার প্রয়োজনীয় অর্থ সাহায্যে করে মানবিকতার পরিচয় দেন।

আহতরা হলেন- কাহারোল উপজেলার ঢিপিগুড়া গ্রামের মোঃ নজরুল ইসলামের স্ত্রী মোছাঃ জুলুফা খাতুন (৩৪), একই গ্রামের মোঃ রেজাউল ইসলামের স্ত্রী মোছাঃ নাসরিন বেগম (৩০) এবং ছেলে মোঃ নাফিস (০২)।

জানা গেছে, বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টায় পুলিশ পিক্যাব নিয়ে মামলা সংক্রান্ত কাজে দিনাজপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয় যাচ্ছিলেন বীরগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ সাকিলা পারভিন। পথে কাহারোল উপজেলার দিনাজপুর-পঞ্চগড় সড়কের কান্তা বাণিজ্যিক খামারের সামনে দুই অটো মুখোমুখী সংঘর্ষে আহত রক্তাক্ত ৩ জন যাত্রী পড়ে থাকতে দেখেন তিনি।

এ ঘটনায় তিনি নিজেই আহতদের গাড়িতে তুলে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতলে ভর্তি করেন। পাশাপাশি তাৎক্ষণিকভাবে চিকিৎসার প্রয়োজনীয় অর্থ সাহায্যে প্রদান এবং দুর্ঘটনার বিষয়টি আহতদের পরিবারকে অবহিত করেন।

এ ব্যাপারে বীরগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ সাকিলা পারভিন জানান, ঘটনাটি আমার থানার মধ্যে পড়ে না। তবু তাদের রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে রক্তাক্ত অবস্থায় আহতদের উদ্ধার করে দ্রুততাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি। চিকিৎসক জানিয়েছেন অতিরিক্ত রক্ত খক্ষরণের কারণে দেরি হলে তাদের বাঁচিয়ে রাখা সম্ভব হতো না। এটি আমি আমার দায়বদ্ধতা থেকেই করেছি।

তিনি জানান, আহত জুলুফা খাতুনের বাম হাতের বাহুর উপরিভাগ কেটে ছুটে যাওয়ার মতো অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনার অপর যাত্রী নাসরিন বেগম গুরুত্বর আহত এবং তার শিশু ছেলে নাফিসের নাক-মুখ দিয়ে রক্ত ঝড়ে সারা শরীর ভিজে গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here