আমাদের সমাজটা ধীরে ধীরে যেন অধঃপতন এর দিকেই যাচ্ছে। একটা সময় মানুষ পরকীয়ার কথা চিন্তাও করতে পারত না আর এখন পরকীয়া যেন কোনই বিষয় না।এবার জোরপূর্বক পরকীয়া সর্ম্পক বজায় রাখার চেষ্টা করায় সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে প্রেমিকের পুরুষাঙ্গ কেটে দিয়েছে এক গৃহবধূ। পরে ওই কাটা পুরুষাঙ্গ ও এ কাজে ব্যবহৃত বটি নিয়ে থানায় আত্বসমর্পন করেছেন তিনি।রবিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার বাগবাড়ী খাঁ পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত পরকীয়া প্রেমিক লম্পট দুলাল (৪৫) ওই গ্রামের মৃত জাবেদ আলীর ছেলে। তাকে রাতেই বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।দুলালের সংসারে স্ত্রী ও ৩টি মেয়ে রয়েছে। তার মধ্যে এক মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। আর রওশন আরার স্বামী, ১ ছেলে ও ২ মেয়ে রয়েছে। তার মধ্যে মেয়ের বিয়ে হয়েছে। এ ঘটনায় দুলালের স্বজনরা থানায় মামলা করেছেন।

 

স্থানীয় ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, দুলাল হোসেনের সাথে একই গ্রামের আব্দুস সাত্তারের স্ত্রী রওশন আরার দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া প্রেম চলে আসছিলো। এ নিয়ে এলাকায় একাধিকবার সালিশি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। গত কিছুদিন হলো তাদের প্রেমের সম্পর্কের অবনতি হয়।

রবিবার সন্ধ্যায় রওশন আরার স্বামী আব্দুস সাত্তার নামাজের জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। এই সুযোগে দুলাল হোসেন তার বাড়ির মধ্যে প্রবেশ করে রওশন আরাকে জোর করে অনৈতিক কাজের চেষ্টা করে। এ সময় বটি দিয়ে তার পুরুষাঙ্গ কর্তন করেন। পরে ওই নারী কাটা পুরুষাঙ্গ ও বটি নিয়ে থানায় পুলিশের কাছে আত্মসমার্পণ করে।

কামারখন্দ থানার ওসি হাবিবুল ইসলাম জানান, ওই নারী স্বেচ্ছায় থানায় কর্তন করা পুরুষাঙ্গ ও বটি নিয়ে আসেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় দুলালের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করেছে এবং রওশনারাকে আটক করা হয়েছে। দুলালকে উদ্ধার করে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here