নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে স্বামীর কাটা মাথা নিয়ে থানায় হাজির হয়েছেন স্ত্রী। গত মঙ্গলবার (২৮ মে) রাতে ভারতে আসামের লক্ষীপুর জেলায় এ ঘটনা ঘটে।

স্বামী মুধিরামকে (৫৫) হত্যা করে তার মাথা ব্যাগে ভরে ধালপুর থানায় হাজির হন গুনেশ্বরী বারকাটাকি (৪৮) নামের ওই নারী।

গুনেশ্বরী বলেন, সে (স্বামী) বহু বছর ধরেই আমাকে মারতো। বেশ কয়েকবার কুড়াল দিয়েও আঘাত করেছে। অনেক আগেই তাকে ছেড়ে যাওয়ার কথা ভেবেছিলাম। শুধু ছেলে-মেয়ের কথা ভেবে যাইনি। কিন্তু আর সহ্য করতে না পেরে, তাকে মারতে বাধ্য হয়েছি। নাহলে সে-ই আমাকে মেরে ফেলতো।

দুই ছেলে ও তিন মেয়ের মা ওই নারী স্বামীকে চাপাতি দিয়ে হত্যা করেন। পরে তার মাথা প্লাস্টিক ব্যাগে ভরে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার হেঁটে থানায় পৌঁছান।

স্থানীয় এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ওই নারী স্বামীর কাটা মাথা নিয়ে থানায় এসে আত্মসমর্পণ করেন।

কারণ জানতে চাইলে তিনি জানান, মাতাল স্বামীর অত্যাচার থেকে বাঁচতে তাকে হত্যা করেছেন। এ বিষয়ে অধিকতর তদন্ত চলছে।

গতকাল বুধবার (২৯ মে) স্থানীয় আদালত গুনেশ্বরী বারকাটাকিকে নিরাপত্তা হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here