চ্যাম্পিয়নস লিগে ‘সি’ গ্রুপের ম্যাচে রেড স্টার বেলগ্রেডকে ৬-১ গোলে হারিয়েছিল পিএসজি। হ্যাটট্রিক করেছিলেন নেইমার। সেই ম্যাচটা পাতানো ছিল বলে সন্দেহ করছে উয়েফা। এ নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে ফরাসি কৌঁসুলি আর দেশটির পুলিশ

খবরটি সত্য হলে নেইমার মন খারাপ করতেই পারেন। চ্যাম্পিয়নস লিগে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে রেড স্টার বেলগ্রেডকে ৬-১ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল পিএসজি। হ্যাটট্রিক করেছিলেন নেইমার। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান তারকার সেই হ্যাটট্রিকের সুখস্মৃতি মাটি হয়ে যেতে পারে। ফরাসি সংবাদমাধ্যম ‘লেকিপ’ জানিয়েছে, ম্যাচটি পাতানো ছিল—এমন সন্দেহে তদন্ত শুরু করেছেন ফ্রান্সের সরকারি কৌঁসুলিরা।

‘সি’ গ্রুপ থেকে এই ম্যাচ মাঠে গড়িয়েছে ৩ অক্টোবর। তার কিছুদিন আগে উয়েফা গোপন সূত্রে খবর পায়, সার্বিয়ান ক্লাবটির ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা এই ম্যাচ ঘিরে মোটা অঙ্কের বাজি ধরেছেন। সেই কর্মকর্তার পরিচয় এখনো জানা যায়নি। সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সেই ব্যক্তি নিজ দলের ৫ গোল ব্যবধানে হারের পক্ষে প্রায় ৫ মিলিয়ন পাউন্ড বাজি ধরেছিলেন। ম্যাচের ফলাফলও হয়েছে ঠিক তা-ই। ৫ গোল ব্যবধানে হেরেছে ২৬ বছর পর ইউরোপসেরার ক্লাব টুর্নামেন্টে ফেরা দলটি।

সার্বিয়ান ক্লাবটির সেই কর্মকর্তার বাজি ধরার খবরটি উয়েফার কানে আসার পর ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি আর দেরি করেনি। স্বয়ং উয়েফা সভাপতি আলেক্সান্ডার সেফেরিন ব্যাপারটি জানান ফ্রান্সের জাতীয় আর্থিক কৌঁসুলিকে। এরই ধারাবাহিকতায় সেই ম্যাচের তদন্ত শুরু করেছে ফরাসি পুলিশ। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়েছে পিএসজির মাঠে পার্ক দেস প্রিন্সেসে। নেইমারের হ্যাটট্রিক ছাড়াও সেই ম্যাচে একটি করে গোল করেছিলেন কিলিয়ান এমবাপ্পে, এডিনসন কাভানি ও অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া। রেড স্টারের গোল করেছিলেন মার্কো মারিন।

বেলজিয়ান ফুটবলে ম্যাচ পাতানো বিতর্ক উসকে ওঠার তিন দিন পর চ্যাম্পিয়নস লিগের এই ম্যাচ নিয়ে প্রশ্ন উঠল। দেশটির ঘরোয়া ফুটবলে ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে এক রেফারি আর তিন এজেন্টসহ মোট ১৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here