ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রথম দফায় ভোট দিচ্ছে জনগণ। সবাইকে অবাক করে দিয়ে প্রথম দফার দৌড়ে এগিয়ে ভোলোদিমির জেলেনস্কি। তিনি টিভি সিরিজের জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা। তার রাজনৈতিক অভিজ্ঞতাও অন্যদের চেয়ে কম।

দেশটিতে বর্তমান প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কো জেলেনস্কির প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী। তবে ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদন বলছে, বর্তমান প্রেসিডেন্টের চেয়ে ১৫ শতাংশ পয়েন্টে এগিয়ে কমেডিয়ান জেলেনস্কি। ফলাফল বলছে, জেলেনস্কি ত্রিশ বছরের কম বয়সী তরুণদের ৪০ শতাংশের সমর্থন পেয়েছেন।

রাজনীতিতে অনভিজ্ঞ হলেও ৪১ বছর বয়সী জেলেনস্কি শুরু থেকেই বাকি ৩৮ জন প্রার্থীর চেয়ে এগিয়ে ছিলেন জনমত জরিপে। অবশ্য গত জানুয়ারি পর্যন্ত আরেক প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ও দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইউলিয়া টিমোশেঙ্কো এগিয়ে ছিলেন। সম্প্রতি তাকে পেছনে ফেলে উপরে উঠে এসেছেন জেলেনস্কি।

তবে বরাবরের মতো জেলেনস্কি তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কো ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইউলিয়া টিমোশেঙ্কোর চেয়ে এগিয়ে আছেন। তিন নেতাই ইউরোপীয় ইউনিয়নপন্থী। রাশিয়াপন্থী কোনো প্রার্থী এবার ভোটে সুবিধা করতে পারেননি।

রাশিয়াপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা এলাকাগুলোকে এই নির্বাচনে বয়কট করা হয়েছে। যদি রোববারের ভোটে কোনো প্রার্থী ৫০ শতাংশের বেশি ভোট না পায় তবে সবচেয়ে বেশি ভোট পাওয়া দুই প্রার্থীকে নিয়ে আগামী ২১ এপ্রিল দ্বিতীয় দফার ভোট হবে।

ইউক্রেনের আধা রাষ্ট্রপতিশাসিত প্রতিনিধিত্বমূলক বহুদলীয় গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রের কাঠামোয় পরিচালিত সরকার ব্যবস্থা। নির্বাহী ক্ষমতা মন্ত্রিসভার হাতে ন্যস্ত। আইন প্রণয়ন ক্ষমতা আইনসভার হাতে ন্যস্ত।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পাঁচ বছর মেয়াদের জন্য জনগণের ভোটে নির্বাচিত হন। পেত্রো পোরোশেঙ্কো ২০১৪ সাল থেকে দেশটির প্রেসিডেন্ট। তিনি কট্টর জাতীয়তাবাদী হিসেবে পরিচিত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here