যুবকের রহস্যজনক মৃত্যুকে ঘিরে চলছে নানা গুঞ্জন। ভিন্ন ভিন্ন সূত্রে ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য পাওয়া গেছে।একটি সূত্র বলছে বাসা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয় সে বাসায় দুই নারীকে পাওয়া যাওয়ায় ধারণা করা হচ্ছে যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট খেয়ে তার মৃত্যু হয়েছে। অপর একটি সূত্র বলছে, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হয়ে অসুস্থতাজনিত মারা গেছেন তিনি।

মৃত যুবক আবদুল জলিল (৩৫) সিলেটের বাসিন্দা। বুধবার (৩ এপ্রিল) রাত ৯টার দিকে সিলেট সদর উপজেলার খাদিমপাড়া ইউনিয়নের মেজরটিলার একটি বাসা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুৃলিশ। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই নারীকে আটক করেছে পুলিশ।

আবদুল জলিলের গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জ জেলার এনায়েতপুর। তবে তিনি ব্যবসায়িক কাজে সিলেট নগরের লালবাজারে হোটেল বাগদাদের একটি কক্ষে ভাড়া হিসেবে থাকতেন।

নিহত যুবকের ব্যবসায়িক পার্টনার কামরুল ইসলাম জানান, তিনি ও আবদুল জলিল ফেরি করে কাপড় বিক্রি করতেন। বুধবার দুপুর থেকে তার মোবাইলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। রাত ৯টার দিকে আব্দুল জলিল মারা গেছেন বলে তার মোবাইলে কাছে ফোন আসে।

পরে মেজরটিলায় একটি বাসা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট খাওয়ায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বলে ধারণা করছেন চিকিৎসকরা।

এ ব্যাপারে শাহ পরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন বলেন, এর আগে নিহতের দুই ভাইও একইভাবে মারা গেছে। তাদের ডায়াবেটিস ছিলো। নিহত জলিলেরও ডায়াবেটিস আছে বলে জানতে পেরেছি। যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট খেয়ে না রোগাক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পর বলা যাবে।

এ ঘটনায় ওই বাসা থেকে আটক দুই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। তবে তাদের বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া যায় বলে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here