এক সময় ক্রিকেটে একজন উইকেটরক্ষক ছিলেন দলের বিশেষ সদস্য। তাকে বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান বা বোলারদের মতো শুধুমাত্র উইকেটকিপিংয়ে বিশেষভাবে দক্ষ হতে হতো। কিন্তু সময়ের পরিবর্তনে ক্রিকেট অনেক বদলে গেছে। ক্রিকেটের পূর্বের ধারণার চেয়ে বর্তমান ধারণাসমূহ বেশ ভিন্ন।

আগে একজন উইকেটরক্ষককে ব্যাটিংয়ে পারদর্শী না হলেও চলতো। কিন্তু বর্তমানে সেটা প্রায় অসম্ভব। একজন উইকেটরক্ষক যদি বর্তমান সময়ে কোনো দলে জায়গা পেতে চান, তাহলে তাকে অবশ্যই উইকেটকিপিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিংয়ে দক্ষ হতে হবে।

ক্রিকেট বিশ্বে অসংখ্য উইকেটরক্ষক এসেছেন, কিন্তু সবাই নিজেকে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেননি। তবে যেসব ক্রিকেটার নিজেকে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছেন, তারা দলের প্রয়োজনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। বর্তমান সময়ে একজন ভালো মানের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান যে কোনো দলের জন্য আশীর্বাদস্বরূপ।

ক্রিকেট ইতিহাসে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের ধারণা প্রবর্তন হওয়ার পর থেকে অনেক ক্রিকেটার বিভিন্ন দলের হয়ে এই ভূমিকা পালন করেছেন। কেউ দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছেন, আবার কেউ করতে পারেননি। চলুন, ক্রিকেটের ৫ জন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

৫. ইয়ান হিলি (অস্ট্রেলিয়া)

অস্ট্রেলিয়ার উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ইয়ান হিলি এই তালিকার সবার উপরে থাকতে পারতেন, যদি তিনি ব্যাট হাতে আরো কিছু রান করতে পারতেন। ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা উইকেটরক্ষক হিলিই  ক্রিকেটে সর্বপ্রথম উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের ধারণাটি প্রবর্তন করেন।

ব্যাটসম্যান হিসেবে অন্যদের তুলনায় কম রান করলেও উইকেটের পেছনে তিনি ছিলেন এক কথায় অনবদ্য। ক্রিকেটের দুই ফরম্যাটে তিনি মোট ৬২৮টি ডিসমিসাল করেছেন। সেই সাথে ব্যাট হাতে টেস্টে ৪টি সেঞ্চুরিসহ উভয় ফরম্যাটে ৬ হাজারের বেশি রানও রয়েছে তার নামের পাশে। তিনি ছিলেন আধুনিক ক্রিকেটের সর্বপ্রথম উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। তাকে অনুসরণ করেই পরবর্তীতে অনেক উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের জন্ম হয়েছে।

৪. মহেন্দ্র সিং ধোনি (ভারত)

উইকেট কিপিংয়ের ক্ষেত্রে ভারতের সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির নিজস্ব স্টাইল রয়েছে। ধোনি তার দ্রুত গতির স্ট্যাম্পিংয়ের জন্য বেশি বিখ্যাত। তিনি চোখের পলকে স্ট্যাম্প থেকে বেল ফেলে দিতে পারেন। এক্ষেত্রে তার চেয়ে দ্রুতগতি বর্তমান সময়ের আর কোনো উইকেটরক্ষকের নেই বললেই চলে। ধোনি তার ক্যারিয়ারে মোট ৬১৬টি ডিসমিসাল করেছেন, যার মধ্যে ১৮৪টি স্ট্যাম্পিং করে তিনি রেকর্ড গড়েছেন।

ব্যাটসম্যান হিসেবে ধোনিকে ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা ফিনিশার হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তিনি অসংখ্য ম্যাচে ভারতকে খাদের কিনারা থেকে তুলে জয়ের বন্দরে নিয়ে গেছেন। তিনি যে সময়ে ভারতের ক্রিকেট দলে ঢোকেন, সেই সময়ে ভারতীয় দলের নির্বাচকরা এমন একজন উইকেটরক্ষকের সন্ধান করছিলেন, যিনি লোয়ার অর্ডারে ভালো ব্যাট করতে পারেন। ধোনি দলে ঢোকার পর নির্বাচকদের সেই লক্ষ্য পূরণ হয়, তিনিও দলে স্থায়ী জায়গা করে নেন।

ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা অধিনায়ক ধোনি তার ঠাণ্ডা মস্তিষ্কের জন্য ‘ক্যাপ্টেন কুল’ হিসেবে পরিচিত। অধিনায়ক হিসেবে ভারতকে আইসিসির সব ধরনের শিরোপা এনে দেওয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতে তিনি ১৪ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটে ১৬টি সেঞ্চুরিসহ ১৬ হাজারের বেশি রান করেছেন। ওডিআইতে তিনি দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে ১০ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন।

৩. মার্ক বাউচার (দক্ষিণ আফ্রিকা)

দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটার মার্ক বাউচার ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম কোনো উইকেটরক্ষক হিসেবে ১ হাজার ডিসমিসালের মালিক হতে পারতেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একটি অনুশীলন ম্যাচে চোখে বেল লেগে তার ক্যারিয়ার সেখানেই শেষ হয়ে যায়। ফলে তাকে ৯৯৯টি ডিসমিসালে থেমে যেতে হয়।

বাউচার ১ হাজার ডিসমিসালের রেকর্ড গড়তে না পারলেও তাকে ক্রিকেট ইতিহাসে অন্যতম সেরা উইকেটরক্ষক হিসেবেই ভক্তরা আজীবন স্মরণ করবেন। ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনি অধিকাংশ সময় নিচের দিকে ফিনিশার হিসেবে খেলেছেন। লোয়ার অর্ডারে ব্যাট করে তিনি দ্রুত গতিতে রান তুলে প্রায় একাই দক্ষিণ আফ্রিকাকে অনেক ম্যাচ জিতিয়েছেন। রেকর্ড পরিমাণ ডিসমিসালের পাশাপাশি তিনি ব্যাট হাতে ১০ হাজারের বেশি রান করে  নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন।

২. কুমার সাঙ্গাকারা (শ্রীলঙ্কা)

শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি ক্রিকেটার কুমার সাঙ্গাকারা বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন। তিনি তার দীর্ঘ ১৫ বছরের ক্যারিয়ারে মোট ২৮ হাজার ১৬ রান করেছেন।  ওডিআইতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এই রান সংগ্রাহক তার ক্যারিয়ারে মোট ৬৩টি সেঞ্চুরি করেছেন, যা ক্রিকেট ইতিহাসে তৃতীয় সর্বোচ্চ। এছাড়াও তিনি ২০১২ সালে আইসিসির বর্ষসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছিলেন।

শ্রীলঙ্কার বামহাতি এই ব্যাটসম্যান তার ব্যাটিং কারিশমা দেখানো ছাড়াও উইকেটরক্ষক হিসেবে দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন। তিনি মূলত একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলেছেন এবং ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে অনিয়মিতভাবে উইকেটকিপিং করেছেন। তারপরও তিনি শুধুমাত্র ওডিআইতে পাঁচ শতাধিক ডিসমিসাল করেছেন। এছাড়া তার টেস্টে ডিসমিসাল দুই শতাধিক। বিশ্বকাপ ইতিহাসে তিনি সর্বোচ্চ ৫৪টি ডিসমিসালের মালিক। এতগুলো রেকর্ড সাঙ্গাকারাকে বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের খ্যাতি এনে দিয়েছে।

১. অ্যাডাম গিলক্রিস্ট (অস্ট্রেলিয়া)

ক্রিকেট ইতিহাসে অ্যাডাম গিলক্রিস্ট যে সবচেয়ে সেরা উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান, এ বিষয়ে কারো কোনো সন্দেহ নেই। অস্ট্রেলিয়ার বিধ্বংসী এই ব্যাটসম্যান তার দিনে বিশ্বের যে কোনো দলের  বোলারদের উপর তাণ্ডব চালিয়ে প্রায় একাই জয় তুলে আনতে পারতেন। ক্রিকেটে তিনি নতুন এক অধ্যায়ের সূচনা করেছিলেন। বলতে গেলে আক্রমণাত্মক ক্রিকেটের সংজ্ঞাই বদলে দিয়েছিলেন গিলক্রিস্ট

ব্যাট হাতে এই অজি ব্যাটসম্যান ১৫ হাজারের বেশি আন্তর্জাতিক রান করেছেন। এছাড়া উইকেটের পেছনে তিনি মোট ৮১৩টি ক্যাচ নিয়েছেন এবং মোট ৮২ বার স্ট্যাম্পিং করেছেন। তবে গিলক্রিস্ট শুধুমাত্র রেকর্ড সৃষ্টি করে যাননি, সেই সাথে ভবিষ্যতের অনেক ক্রিকেটারদের মধ্যে নিজের আদর্শকে বিলিয়ে দিয়ে গেছেন। তাকে অনুসরণ করে পরবর্তী সময়ে আরো অনেক উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের আবির্ভাব হয়েছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here