স্ত্রীর দেওয়া মোবাইল দিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় সাতক্ষীরার কলারোয়ার বয়ারডাঙ্গা গ্রামের স্বামী বিল্লাল হোসেনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন স্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) দুপুরে স্বামীকে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। গ্রেফতার বিল্লাল হোসেন (২৬) উপজেলার চন্দনপুর ইউনিয়নের বয়ারডাঙ্গা গ্রামের কামরুল গাজীর ছেলে।

চন্দনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম বলেন, স্ত্রী সঙ্গে মেলামেশার অন্তরঙ্গ ভিডিও করে তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়েছেন স্বামী বিল্লাল হোসেন। এ ঘটনায় দ্বিতীয় স্ত্রী থানায় মামলা দিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিল্লাল হোসেনের প্রথম স্ত্রী উপজেলার রামভাদ্রপুর গ্রামের নানার বাড়িতে থাকেন। তাদের আড়াই বছরের একটি মেয়ে আছে এবং বিল্লাল বিবাহিত বলে জানতে পারেন দ্বিতীয় স্ত্রী। প্রথম স্ত্রী থাকার কথা জানতে পারার পর থেকে দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে বিল্লালের সম্পর্কের অবনতি ঘটে।

এরপর বিল্লাল হোসেন অন্তরঙ্গ ভিডিও ধারণ করার ঘটনা জানিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রীকে চুপ থাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন। অন্তঃসত্ত্বা দ্বিতীয় স্ত্রীকে বাড়িতে নেয়ার জন্য চাপ দিলে বিল্লাল হোসেন অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ওই ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে দেন।

এ বিষয় কলারোয়া থানা পুলিশের ওসি শেখ মুনির-উল-গীয়াস বলেন, প্রথম স্ত্রী ও সন্তানের কথা গোপন করে বিল্লাল হোসেন দেড় বছর আগে পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে তোলেন ওই মেয়ের সঙ্গে। এক বছর আগে গোপনে তাকে বিয়ে করে ঢাকায় নিয়ে যান। এরপর তাকে পোশাক কারখানায় চাকরিতে দিয়ে নিজে একটি সেলুনের দোকানে কাজ নেন। স্ত্রী বেতনের টাকা দিয়ে স্বামী বিল্লাল হোসেনকে নতুন মোবাইল কিনে দেন। সেই মোবাইল দিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে অন্তরঙ্গ মেলামেশার ভিডিও গোপনে ধারণ করেন বিল্লাল হোসেন। পরে সেগুলো বিভিন্ন মোবাইল ও ফেসবুকে ছড়িয়ে দেন।

ওসি আরও জানান, এসব ঘটনায় বিল্লাল হোসেনের দ্বিতীয় স্ত্রী বাদী হয়ে থানায় মামলা দিয়েছেন। আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here